কত শক্তিশালী ছিল আলেকজান্ডারের বাহিনী ?

 

পারভেজ সেলিম 

পারভেজ সেলিম


(আগের কিস্তির পর….)

 

আলেকজান্ডার হচ্ছেন পৃথিবীর ইতিহাসের সবচেয়ে প্রভাবশালী যোদ্ধা। মাত্র ৩২ বছর বয়সে যিনি পৃথিবীর অর্ধেকটাই দখল করে ফেলেছিল। গ্রিস থেকে ভারতের পাঞ্জাব দখলে তিনি একটি যুদ্ধেও হারেনি। ইতিহাসের এই পরাক্রমশালী যোদ্ধার কথা মানুষ দুই হাজার বছর পরও মনে রেখেছে। সবাই তাকে চেনে আলেকজান্ডার, আলেকজান্ডার দ্যা গ্রেট নামে ।

 

কিন্তু কিভাবে এত অল্প বয়সের একজন তরুণ এত বিশাল সম্রাজ্য জয় করলো ? কত শক্তিশালী ছিল তার সেনাবাহিনী? অথবা ব্যক্তি আলেকজেন্ডার কি উভয়কামি ছিলেন ? কিভাবে মৃত্যু হলো আলেকজান্ডারের বিষে নাকি ম্যালেরিয়ায় ? আলেকজেন্ডার কি সত্যিই মহান যোদ্ধা ছিলেন নাকি ছিলেন একজন দুর্ধর্ষ খুনি?

 

পুরো ধারাবাহিক জুড়ে আমার এরকম আরো নানা প্রশ্নের উত্তর খুঁজব। নজর দেবো আলেকজান্ডারের জন্ম, মৃত্যু, শিক্ষা, প্রেম এবং যুদ্ধসহ গুরুত্বপূর্ণ ঘটনাগুলোর দিকে। 

 

আজ চতুর্থ কিস্তিতে নজর দেয়া যাক আলেকজান্ডারে অপারাজেয় সেই সেনাবাহিনীর উপর

 
 


পর্ব : ০৪

 

সেনাবাহিনী : কত শক্তিশালী ছিল এই আলেকজান্ডারের বাহিনী ?

 

আলেকজেন্ডার যখন বিশ্ব জয়ের জন্য বের হয় তখন তার বাহিনীর বাহিনীমোট সদস্য ছিলপ্রায় ৯২ হাজার । যার মধ্যে পদাতিক ছিল ৪৮,০০০ হাজার, অশ্ববাহিনী ছিল ৬,১০০ হাজার, নাবিক ছিল ৩৮,০০০ আর সাথে ছিল ১২০টি জাহাজ ।  আর পুরো গ্রিকের বিভিন্ন রাজ্য থেকে এসেছিল এসব সৈন্য বাহিনীর সৈন্যরা সজ্জিত থাকতো বিভিন্ন ধরনের অস্ত্র দিয়ে ।

 
 

সবার অগ্রভাবে থাকতো ৯ হাজার মেসিডোনিয়ান ফ্যালানজাইটএই পদাতিক বাহিনীর মুল অস্ত্র ছিল সারিসা সারিসা হল ১৮ ফুট  লম্বা একটা ফলকা যুক্ত শক্ত পাইপ বা লোহার রড়তাদের মুল শক্তি ছিল বিশেষ কায়দায় যুদ্ধ করা, যাকে বলা হয় ফ্যালানক্স শক্রর আক্রমন ঠেকাতে মুহুর্তের মধ্যে সৈন্যদের ঢালগুলো একত্রিত করে এক নিছিদ্র ঢালের পাহাড় বানাতে পারতো তারা আর সাধারনের চাইতে দ্বিগুন লম্বা সারিসা নিয়ে আগিয়ে যেতে পারতো এই বাহিনী। যাদের নেতৃত্বে থাকতো সেনাপ্রধান ফারমিওন ।


আরো পড়ুন :


আর এই বাহিনীর পাহারায় থাকতো ৩ হাজার হাইপাসপিস্ট যাদের অস্ত্র ছিল ছোট বর্ষা আর ঢাল। নেতৃত্বে ছিল সেনাপ্রান ফারমিওনের পুত্র নিকানর ।

 

দ্বিতীয় সারিতে থাকতো  ১২ হাজার গ্রীক হপসলাইটগ্রীক থেকে আসা এসব পদাতিক বাহিনীর অস্ত্র ছিল ঢাল আর ৪ ফুট লম্বা বর্ষা ।

 

ফ্যালানাক্সদের পিছনে ফিলোটাসের নেতৃত্বে থাকতো দ্যা কিং কম্পিনিয়ন নামের একটি দূর্ধর্ষ অশ্ববাহিনী, যারা ঝটিকা আক্রম করে আবার ফ্যালানক্সদের ঢালের আড়ালে লুকিয়ে পড়তে পারতো

 

এছাড়া বুলগেরিয়া ও থেসেলী, ইলেরিয়া থেকে আগত অন্যান্য অশ্ববাহিনী গুলোর অস্ত্র ছিল তীর ধনুকক্যালাস,  ইরেজিয়াস ও ক্যাসান্ডারের নেতৃত্বে ছিল আরো কিছু অশ্ববাহিনী

 

আলেকজান্ডার নিজে নেতৃত্ব দিতেন বিশেষভাবে প্রশিক্ষিত অশ্ববাহিনী রয়েল স্কোয়াড্রনের যুদ্ধের ময়দানে আলেকজান্ডারের সাহসী আর বুদ্ধিদীপ্ত নেতৃত্বে এই বাহিনী হয়ে উঠেছিল পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ সুসংগঠিত অপারেজেয় সেনাবাহিনী। এই সুজ্জিত বাহিনী টানা ৮ বছরের যুদ্ধে গ্রিক থেকে পাঞ্জাব দখল করে ফেলেছিল যেখানে তাদের একটি যুদ্ধেও পরাজয়ের স্বাদ গ্রহণ করতে হয়নি 

(চলবে…)




পারভেজ সেলিম
 লেখক ও চলচ্চিত্রকার


 
আলেকজান্ডারের অন্যান্য পর্ব :
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

১৮৯ thoughts on “কত শক্তিশালী ছিল আলেকজান্ডারের বাহিনী ?

  1. I think everything typed made a lot of sense.
    But, consider this, suppose you wrote a catchier post title?
    I ain’t suggesting your information isn’t solid., but
    what if you added a post title to maybe grab people’s attention?
    I mean কত শক্তিশালী ছিল আলেকজান্ডারের বাহিনী ?
    – আলোর দেশে is a little plain. You could glance at Yahoo’s home page and
    see how they create article headlines to grab viewers to click.
    You might add a video or a related pic or two to grab people excited about what you’ve written. In my opinion, it might bring your website a little livelier.

  2. Hey I know this is off topic but I was wondering if you knew of any widgets I could add to my
    blog that automatically tweet my newest twitter updates.
    I’ve been looking for a plug-in like this for quite some
    time and was hoping maybe you would have some experience with something like
    this. Please let me know if you run into anything.
    I truly enjoy reading your blog and I look forward to your new updates.

  3. Thanks for sharing excellent informations. Your web-site is so cool. I’m impressed by the details that you have on this blog. It reveals how nicely you understand this subject. Bookmarked this web page, will come back for more articles. You, my friend, ROCK! I found simply the information I already searched everywhere and simply couldn’t come across. What an ideal web-site.

  4. Great – I should definitely pronounce, impressed with your website. I had no trouble navigating through all tabs as well as related info ended up being truly simple to do to access. I recently found what I hoped for before you know it at all. Quite unusual. Is likely to appreciate it for those who add forums or something, web site theme . a tones way for your customer to communicate. Nice task.

  5. Unquestionably believe that that you stated.Your favourite justification seemed to be at the net the simplest factor to bear in mind of.I say to you, I certainly get irked whilst people think about issues that they just do not understand about.You controlled to hit the nail upon the highest as well as defined out the entire thing with no need side effect , otherpeople can take a signal. Will likely be back to get more.Thanks

  6. Thank you for sharing superb informations. Your web site is so cool. I’m impressed by the details that you have on this web site. It reveals how nicely you perceive this subject. Bookmarked this website page, will come back for more articles. You, my friend, ROCK! I found simply the information I already searched all over the place and simply could not come across. What an ideal web-site.

  7. Going to graduate school was a positive decision for me. I enjoyed the coursework, the presentations, the fellow students, and the professors. And since my company reimbursed 100 of the tuition, the only cost that I had to pay on my own was for books and supplies. Otherwise, I received a free master’s degree. All that I had to invest was my time.

  8. Al-Ahliyya Amman University (AAU) is the first private university in Jordan to be a pioneer of private education providing academic services since 1990. AAU has been accorded institutional and programmatic accreditation and is also a member of the International Association of Universities, Federation of the Universities of the Islamic World, Union of Arab Universities, and Association of Arab Private Institutions of Higher Education. AAU seeks distinction by upgrading learning outcomes through the adoption of various methods and strategies that depend on a system of quality control and effective follow-up by all faculties, departments, centers, and administrative units.
    AAU aims to become a leading university in the Hashemite Kingdom of Jordan and the Arab World. In this vein, AAU has adopted Information Technology as an essential ingredient in all activities, especially e-learning, and has incorporated it into its educational processes in all areas of expertise and specialization to achieve this goal.
    http://www.ammanu.edu.jo

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x