‘আত্নজের অহংকার’ কবিতা


শিল্পিত পারু

শিল্পিত পারু‘র কবিতা


আত্নজের অহংকার


তবু ব্যথার আলো হাতে তুমি এসে দাঁড়ালে সম্মুখে 

সেই কবে ঠিক মনে পড়ে না এখন,              

তোমার জানালায় কি এক শীতল সুখ খেলা করতো, 

আদর ছোঁয়ানো তোমার বালিশে কি এক মুগ্ধঘুম এসে নাড়িয়ে দিয়ে যেত 

তুমি ছিলে নিরাপদ ভালোবাসার আকুতি আর আশ্রয়

তোমারও যে এত গল্প ছিল তা কে জানতো ? 

তুমি আমার ছেলেবেলার স্মৃতির মহারানী ! 

তোমার মুখে কি নির্ভেজাল চকচকে মুগ্ধতা,                  

তোমার বলিরেখায় আমার বিষ্ময় আজো লুকিয়ে আছে

তুমি যা দিলে তার চেয়ে বেশি কি নিয়ে গেলে সাথে করে !

আমার যুদ্ধ বেদনার রাজসাক্ষী তুমি  !!  

কতটা নির্মোহ ভালোবাসার হাত তুমি বিছিয়ে রেখেছিলে আজন্ম

তোমার নীল হয়ে যাবার পর বুঝেছি ভালোবাসা এমনই হয় !! 

সে দাঁড়িয়ে থাকে ! 

দাঁড়িয়ে থাকে অবিরাম !  

তোমার বৃদ্ধ বুকে বেদনার এত পদ্ম জেগে ছিল

কখনো তার ভার এসে বাইরে ছিটকে পড়তে দিলে না  

শুধু লাল আভাটুক ঠিকরে ঠিকরে উপচে পড়তো তোমার গালে !! 

তোমারও যে এত স্বপ্ন ছিল কেউ জানতে চাইলো না কোনদিন ? 

তুমি যাবার আগে বলে গেলে বেদনা সংকটের আনন্দ ভুবনে,

তবু দাঁড়িয়ে থাকাই জীবন !

দাঁড়িয়ে থাকাই ভালোবাসা !

হারিয়ে যাওয়ায় কোন গৌরব নেই !!

আজ কত বছর দাঁড়িয়ে আছি আত্নজ আমার

তারও আগে দাঁড়িয়ে থাকা শিখিয়ে গিয়েছে তোমার বুকের সন্তান

তুমি তোমার সেই প্রাণের সাথে মিশেছো এখন,

বলো তাকে এখন তোমার সন্তান দাঁড়িয়ে আছে তোমাদের অহংকার নিয়ে !


শিল্পিত পারু

(পিতামহী চলে যাবার পর)

ঢাকা /১১.০২.১৯


আরো পড়ুন : ‘সন্ধ্যাবালিকা’ শিল্পিত পারুর কবিতা

One thought on “‘আত্নজের অহংকার’ কবিতা

Leave a Reply

Your email address will not be published.