‘নারী’- নারী দিবসের কবিতা

 
 
নারী
শিল্পিত পারু
যে গন্ধম তুমি তুলে দিলে মুখে
আজও দেখি সেই ঘ্রাণ লেগে আছে চোখে
.
কি এক আস্ফালনে জন্ম দিলে বিধাতার
তারপর দাস হলে তুমি;
.
এরপর ছিঁড়ে যাওয়া মহাকালে
পাথর ভেঙেছো ঢের
তোমার সেই ভাঙ্গা পাঁজরের কোলে
কখন উঁকি দিয়ে সূর্য ডুবে গেছে অন্ধকারে
এরপর গভীর আরো গভীরে ডুকরে গিয়েছ হেরে ;
.
তবু আলো হাতে নির্মম দাঁড়িয়ে ছিলে তখন
ছেলেবেলার মায়ের মতোন
মুঢ় বধির রোগের মতো
এরপর ঘুমিয়ে গিয়েছিলে কাজে ;
.
যে তুমি জন্ম দিয়েছ বিধাতার
সেও বসে গোনে তোমার শিকলের ঘ্রাণ ;
.
তবু শালিক উড়ে যায় আহত নদীর ধ্যানে
তবু বুকের গহীন জলে ডিঙ্গে বায় তোমার সন্তান
একদিন শিশিরের জলে তোমার ডোবানো পায়ে
একে দেবে নতুন মহাকালের ছবি ; এই ভেবে
.
এরপর তুমি পাখি হবে
বিধাতা মুছে যাবে নারীতে পুরুষে
গন্ধম ফুলে ভরে যাবে আকাশের গাছ
অন্ধকারে আলো মলিন হবে মানুষে মানুষে!!
.
 
শিল্পিত পারু
৮ মার্চ/২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published.