‘নদী ও মতির জীবন’

 শিল্পিত পারু’র কবিতা শিল্পিত পারু


নদী ও মতির জীবন

আবার ভেঙ্গেছে বাঁধ ভোরবেলায়
গরুটা সাঁতরিয়ে কোনরকমে হয়ে গেছে পার
একটু চেষ্টার পর ছেড়ে দিয়েছে দড়ি
ওপারে গিয়ে যদি বাঁচে তো বাঁচুক


গেলবার মতির ঘর গেছে, ক্ষেতের জমিন আগে
বাচ্চাটা ফুলমনির বুকে জাপটে ছিল জোরে
কুমার ঘাটের ভাঙ্গা বরই গাছে আটকে ছিল
দুইদিন পর মা আর মেয়েকে কবরে রেখে
তিনদিন ঠায় দাঁড়িয়েছিল মতি জারুলতলে।


এরপর কত কত বালুর বস্তা এলো, কংক্রিটের দলা
পাড় ভেঙ্গে তবু গোটা গ্রাম গেল পানির তলে
গেছে সব জলের তোড়ে, ভাসে কিসের জোর?


কত বছর হল মতি ছাড়েনি নদীর পাড়
বাঁধেনি নতুন ঘর, শুধু সরে সরে গেছে পশ্চিমে।

আবার এসেছে আজ ভাঙ্গতে তার দুয়ার
খানিক দাঁড়িয়ে মতি দিয়েছে লাফ মাঝ দরিয়ায়




শিল্পিত পারু
কবি


আরো পড়ুন : কেন জেগে থাকে চাঁদ 

Leave a Reply

Your email address will not be published.